জামায়াত প্রার্থী অনড়, বিপাকে বিএনপি

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে ১৪-দলীয় জোটে একক প্রার্থী আওয়ামী লীগের বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। তবে গত এক সপ্তাহের চেষ্টাতেও ২০-দলীয় জোট তাদের দুই ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীকে বোঝাতে সক্ষম হয়নি। ফলে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী কিছুটা বেকায়দায় আছেন।

২০-দলীয় জোটের নেতারা জানান, নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম ও নগর জামায়াতের আমির এহসানুল মাহবুবকে এখনো প্রার্থিতা প্রত্যাহারে রাজি করানো যায়নি। আগামীকাল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার রাতে সিলেটে জোটের সভায় নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়। এই সভায় জামায়াতের কেউ উপস্থিত ছিলেন না। তাই জামায়াতকে ছাড়াই কমিটি করতে হয়েছে।

ওই কমিটির সদস্যসচিব হয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সহসম্পাদক আবদুর রাজ্জাক। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা চেষ্টার কোনো ত্রুটি করিনি। জোটের বৈঠকে জামায়াতের কেউ আসেননি। আবার কেন্দ্রীয় বৈঠকে জামায়াত ছিল। সেখানে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয় যে তিন সিটিতেই বিএনপি মনোনীত প্রার্থীই জোটের প্রার্থী। কিন্তু সিলেট জামায়াত তা মানছে না।’ বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী সম্পর্কে তিনি বলেন, এ ক্ষেত্রেও কম চেষ্টা করা হয়নি। এখন আর জোরাজুরি না করে বরং তাদের ওপরই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তারা নিজেরাই সিদ্ধান্ত নিক। এই বিদ্রোহী প্রার্থী অবশ্য আজ রোববার সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন। তিনি প্রার্থিতা প্রত্যাহার করবেন নাকি লড়াই চালিয়ে যাবেন, তা নিয়ে দলে নানা গুঞ্জন চলছে।

জানতে চাইলে বদরুজ্জামান সেলিম প্রথম আলোকে বলেন, তিনি তাঁর প্রার্থিতার ব্যাপারে সর্বশেষ অবস্থা জানাবেন। প্রত্যাহার করবেন নাকি ভোটে লড়ার ঘোষণা দেবেন—এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘মনোনয়নপত্র দাখিলের পর থেকে আমার বাড়িতে একের পর এক বরযাত্রা শুরু হয়েছে। দল বেঁধে বরেরা আমার বাড়িতে আসছেন আর বলছেন, কবুল কও কবুল কও। এইটার অবসান ঘটাতে সংবাদ সম্মেলন করব।’

এদিকে জামায়াতের স্বতন্ত্র প্রার্থী এহসানুল মাহবুব নগরের বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় মতবিনিময় অব্যাহত রেখেছেন। ‘কেন জুবায়ের প্রার্থী’ শিরোনামে প্রচারপত্র বিলি করা হচ্ছে পাড়া-মহল্লায়।

কামরানের পক্ষে অঞ্চল সমন্বয়কদের যৌথ সভা

আওয়ামী লীগের প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের নির্বাচন পরিচালনায় ২৭টি ওয়ার্ডকে নয়টি অঞ্চলে ভাগ করা হয়েছে। গতকাল নগরের গুলশান সেন্টারে নয়টি অঞ্চল সমন্বয়কদের একটি যৌথ সভা হয়। এ ছাড়া দপ্তর উপপরিষদ, প্রচার উপপরিষদ ও আইনবিষয়ক উপপরিষদ গঠন করা হয়। কামরান গতকাল বিকেলে নগরের কাজীটুলা-মক্তব এলাকায় গণসংযোগ করেন। সেখানে তিনি ঘরোয়া পরিসরে আয়োজন করা মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন।

সিপিবি-বাসদের নির্বাচন পরিচালনা কমিটি

সিপিবি-বাসদের মেয়র পদপ্রার্থী কমরেড আবু জাফরের নির্বাচন পরিচালনায় ১০১ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। সিপিবি সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন সুমনকে আহ্বায়ক ও বাসদ সদস্য জুবায়ের আহমদ চৌধুরীকে সদস্যসচিব করে গত শুক্রবার রাতে কমিটি গঠন করা হয়। সদস্য রাখা হয়েছে ১০১ জনকে। গতকাল বিকেলে ১৯ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় গণসংযোগ করেছেন সিপিবি-বাসদের মেয়র প্রার্থী।

Comments..
sidebar
আগের সংবাদ
পরের সংবাদ