আন্দোলনকারীদের ওপর হামলায় বিএনপির নিন্দা ও প্রতিবাদ

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের চলমান আন্দোলনে পুলিশ ও ক্ষমতাসীনদের হামলার ঘটনায় উৎকন্ঠা প্রকাশ করেছে বিএনপি। সেই সাথে সরকারি দলের ছাত্র সংগঠনের বলপ্রয়োগের ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে দলটি।

সোমবার নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর এ উৎকণ্ঠা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আন্দোলনে যে কোটার কথা বলা হচ্ছে, তার সঙ্গে দেশের ৪ কোটি শিক্ষিত যুবসমাজের জীবন-জীবিকার প্রশ্ন জড়িত। বিষয়টি নিয়ে বিএনপির নীতি-নির্ধারণী কমিটি অবগত আছে এবং তারা উৎকণ্ঠিত।

মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপির যে ভিশন ২০৩০ দিয়েছে, সেখানে কোটা বিষয়ে একটি প্রস্তাবনা আছে। মেধার মূল্যায়ন নিশ্চিতে নিয়োগ প্রক্রিয়ায় যথাযথ সংস্কার করা হবে। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, নারী ও প্রান্তিক জাতিগোষ্ঠীর কোটা ব্যতিরেকে বাকি কোটা বাতিল করা হবে।

বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, রোববার রাতে পুলিশ এবং ছাত্রলীগের ক্যাডাররা সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনে বিনা উস্কানিতে সহিংস তাণ্ডব চালিয়েছে। আমরা এ হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তিনি অভিযোগ করেন, পুলিশের সঙ্গে ছাত্রলীগের সশস্ত্র ক্যাডাররা মিলে সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। এ সময় মির্জা ফখরুল আহতদের সুচিকিৎসা ও আটকদের মুক্তি দাবি করেন।

Comments..
sidebar
আগের সংবাদ
পরের সংবাদ