কোটা সংস্কারের দাবিতে গণপদযাত্রা, শাহবাগে অবস্থান

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে ঢাকাসহ সারা দেশে গণপদযাত্রা কর্মসূচি পালন করছেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা।

কেন্দ্রীয়ভাবে আজ রোববার বেলা ২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে থেকে এই পদযাত্রাটি শুরু হয়। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনের রাস্তা দিয়ে বের হয়ে রাজু স্মৃতি ভাস্কর্য হয়ে নীলক্ষেত ও কাঁটাবন ঘুরে শাহবাগের মোড়ে এসে অবস্থান নেন তাঁরা।

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে ঢাকাসহ সারা দেশে গণ পদযাত্রা কর্মসূচি পালন করছেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের হাজারো শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, ৮ এপ্রিল, ২০১৮। ছবি: মোশতাক আহমেদসরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে ঢাকাসহ সারা দেশে গণ পদযাত্রা কর্মসূচি পালন করছেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের হাজারো শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, ৮ এপ্রিল, ২০১৮। ছবি: মোশতাক আহমেদশিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা শাহবাগের মূল রাস্তায় অবস্থান নেওয়ায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে ঢাকাসহ সারা দেশে গণপদযাত্রা কর্মসূচি পালন করছেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের হাজারো শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। শাহবাগ মোড়, ঢাকা, ৮ এপ্রিল। ছবি: শুভ্র কান্তি দাশসরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে ঢাকাসহ সারা দেশে গণপদযাত্রা কর্মসূচি পালন করছেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের হাজারো শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। শাহবাগ মোড়, ঢাকা, ৮ এপ্রিল। ছবি: শুভ্র কান্তি দাশএই কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন হাজারো শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থী। তাঁদের দাবি, বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি সংস্কার করে কমাতে হবে। এই চাকরিতে কোটা সব মিলিয়ে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনতে হবে।

কোটা সংস্কারের পক্ষে শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। শাহবাগ মোড়, ঢাকা, ৮ এপ্রিল। ছবি: শুভ্র কান্তি দাশকোটা সংস্কারের পক্ষে শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। শাহবাগ মোড়, ঢাকা, ৮ এপ্রিল। ছবি: শুভ্র কান্তি দাশবর্তমানে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির চাকরিতে ৫৫ শতাংশ বিভিন্ন ধরনের অগ্রাধিকার কোটা রয়েছে। আর বাকি ৪৫ শতাংশ নিয়োগ হয় মেধা কোটায়। এ জন্য এই কোটা ব্যবস্থার সংস্কারের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছেন শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। শিক্ষার্থীরা বলছেন, দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের আন্দোলন চলবে।

Comments..
sidebar
আগের সংবাদ
পরের সংবাদ