বামপন্থি দলগুলোর জোটগত নির্বাচনী প্রস্তুতি

ডেস্ক রিপোর্ট : জোটগতভাবে আসন ভাগাভাগির ভিত্তিতে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার প্রস্তুতি শুরু করেছে সিপিবি-বাসদ-বাম মোর্চা। পাশাপাশি নিজেদের কর্মসূচি তৈরির প্রস্তুতিও নিচ্ছে এ বাম জোট।

সিপিবি-বাসদ-বাম মোর্চার নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বামপন্থি দলগুলো ঐক্যবদ্ধ কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নামলেও এই জোটের একটি নতুন নামকরণ নিয়ে আলোচনা চলছে। আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারে নামার আগে কর্মসূচি চূড়ান্ত এবং জোটের নাম ঠিক করা হবে। এ বিষয়গুলো নিয়ে জোটের নেতারা কয়েক দফায় সভা করেছেন এবং খসড়া তৈরির কাজ চলছে।

এদিকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য প্রাথমিক প্রস্তুতি হিসেবে জোটভুক্ত দলগুলো প্রত্যেকে আলাদাভাবে নিজেদের দলের প্রার্থী তালিকা তৈরির কাজ শুরু করেছে বলে জানা গেছে। নির্বাচনে ৩০০ আসনেই এই বাম জোট প্রার্থী দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। সিপিবি-বাসদ-বাম মোর্চ ছাড়াও অন্য যেসব বাম দল রয়েছে তাদেরও এই জোটে টানার প্রক্রিয়া চলছে। পাশাপাশি বৃহত্তর নির্বাচনী জোট গঠনের লক্ষ্যে স্বাধীনতার পক্ষের অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক দলগুলোর সঙ্গে নির্বাচনী আসন ভিত্তিক সমঝোতার আলোচনাও আছে বলে বাম নেতারা জানান।

বাম দলগুলো জোটগত আসন ভাগাভাগির আগে কোন আসনে কোন দলের প্রার্থীর অবস্থান ভালো, কোথায় কাকে ছাড় দেওয়া যায় পর্যালোচনা করা হচ্ছে। এজন্য জোটভুক্ত প্রত্যেক দলের প্রার্থী তালিকা আগে চূড়ান্ত করা হচ্ছে। এর পর আলোচনা করে সমঝোতার ভিত্তিতে জোটের প্রার্থী তালিড়া চূড়ান্ত করা হবে।

এদিকে দলগত নির্বাচনী প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সিপিবি ১৭০ থেকে ১৮০টি আসনে নির্বাচনী প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে। এসব আসনে সিপিবির সম্ভাব্য প্রার্থীরা ইতোমধ্যে প্রচার কাজ শুরু করেছেন বলে সিপিবি নেতারা জানান।

দলীয় প্রস্তুতির অংশ হিসেবে বাসদ ৭০ থেকে ৮০টি আসনে প্রার্থী দেওয়ার কাজ শুরু করেছে। এসব আসনে দলটির সম্ভাব্য প্রার্থীরা নির্বাচনের প্রাথমিক প্রস্তুতি শুরু করেছেন এবং প্রচারে নেমেছেন বলে দলটির নেতারা জানান।

এর বাইরে বাম গণতান্ত্রিক মোর্চার শরিক দলগুলোও নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু করেছে। বাম মোর্চার দলগুলো ৩০ থেকে ৪০টি আসনে প্রার্থী দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।
নির্বাচনী প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বাংলানিউজকে বলেন, নির্বাচনকে প্রহসন ও তামাশায় পরিণত করা হয়েছে। সেখান থেকে সুষ্ঠু নির্বাচনী ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনার সংগ্রাম করছি আমরা। পাশাপাশি নির্বাচনী প্রস্তুতিও নিচ্ছি। আমরা নির্বাচনকে সংগ্রামের অংশই মনে করি। নির্বাচনে অংশগ্রহণ পরিস্থিতিই বলে দেবে। আমরা বামপন্থিরা ঐক্যবব্ধভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো। দেশবাসীকে আশ্বস্ত করতে পারি এবারের নির্বাচন শুধু দ্বিমুখী হবে না। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পাশাপাশি বামপন্থিরাও সকল আসনে তাদের চ্যালেঞ্জ করে জোটগতভাবে নির্বাচনী সংগ্রামে অবতীর্ণ হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান বাংলানিউজকে বলেন, আমরা নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি। সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি হলে আমরা বামপন্থিরা জোটগতভাবেই নির্বাচনে অংশ নেবো। প্রস্তুতির অংশ হিসেবে আমরা সিপিবি ও বাসদ প্রাথমিক প্রার্থী তালিকা তৈরির কাজ করছি। বাম জোটের সবাই মিলে ৩শ’ আসনে যাতে প্রার্থী দেওয়া যায় সে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

গণতান্ত্রিক বাম মোর্চাভুক্ত দল গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বকারী জোনায়েদ সাকি এ ব্যাপারে বাংলানিউজকে বলেন, নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরি হলে আমরা জোটগতভাবে নির্বাচনে অংশ নেবো। আমরা দলীয়ভাবে প্রাথমিক প্রস্তুতি নিচ্ছি। নির্বাচনের পরিবেশ তৈরিকে আমরা প্রধান্য দিয়ে সংগ্রাম করছি।

জোটগত নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পর্কে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বাংলানিউজকে বলেন, নির্বাচনী ব্যবস্থায় টাকার খেলা এবং পেশী শক্তির প্রভাবসহ সকল অনিয়ম দূর করার জন্য আমরা জোটগতভাবে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি। নির্বাচনেও আমরা জোটগতভাবে অংশ নেবো। দলগতভাবে আমরা প্রাথমিক প্রস্তুতি শুরু করেছি। প্রার্থীর সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকা তৈরির কাজ শুরু করেছি।

Comments..
sidebar
আগের সংবাদ
পরের সংবাদ